একটি কবিতার জন্মকথন ।। শহীদুল রিপন

এবছর ভালোই বৃষ্টি হলো। অন্তত বিগত তিন-চার বছরের তুলনায়। রাজধানীর আর দশটা (শিক্ষিত-মধ্যবিত্ত-প্রগতিশীল-আধুনিক-বিদগ্ধ এবং জীবনযাপনে ভীরুতা-অপরাগতা-ব্যর্থতায় সাধুর পোশাক পড়া এবং ভালো মানুষের তকমাঅলা) মানুষের মতো সেই বৃষ্টিতে ভালোই দিন কাটছিলো ফয়সালের, কবি ফয়সাল আহমেদের। কিন্তু কপালে তার সুখ সইলো না। এবারের বর্ষণ একটা গোলমাল পাকিয়ে ফেললো। এবার, মানে তত্ত্বাবধায়ক সরকার উঠে যাওয়া ২০১১ সালের বর্ষার …

ভ্রমণ ।। মাহবুব ময়ূখ রিশাদ

একটা সময় ছিল যখন ভাবতাম গল্প লিখতেই বসলেই বুঝি লেখা হয়ে যায়, লিখেছিও অনেক। মোবাইলে, ক্লাসের ফাঁকে। যেদিন আখতারুজ্জামান ইলিয়াস এবং শহীদুল জহির পাঠ করে ফেললাম, সেদিন থেকে গল্প নিয়ে চিন্তা-ভাবনা অনেকাংশে বদলে গেল। নিজের বইয়ের ভুলগুলো বড় প্রকট হয়ে চোখের সামনে দৃশ্যমান হলো। সময়ে শিখছি, জানছি। এবারের পান্ডুলিপি সময় নিয়ে করা। পত্রিকায় কিছু গল্প …

সাখাওয়াত টিপুর মৃত্যু ও মার্কেজের চিঠি ।। নূর সিদ্দিকী

পাণ্ডুলিপি থেকে গল্প পাণ্ডুলিপি : মেয়েটির পায়ে নূপুর ছিলো প্রকাশক : চৈতন্য, অমর একুশে গ্রন্থমেলা-২০১৭ প্রচ্ছদ: রাজীব দত্ত সাখাওয়াত টিপুর মৃত্যু ও মার্কেজের চিঠি নূর সিদ্দিকী হ্যালো আব্দুস সালেক একটা সিএনজি বা অ্যাম্বুলেন্স যা পাও তা নিয়াই তাড়াতাড়ি আমার বাসায় আসো। আমারে হাসপাতালে নিয়া যাইতে হইবো। এরপর আর বিস্তারিত শোনার অপেক্ষা না করেই আমি ফোনটা …

গল্প : বাইনোকুলার ।। মাজহার সরকার

স্কুলে ছাত্র-টয়লেটের দেয়ালজুড়ে আকাঁ একটা পানপাতার ভেতর শিউলি আপার নামের শেষে যোগচিহ্ন দিয়ে জয়নাল স্যারের নাম লেখা। টয়লেটে ঢুকে প্যান্ট খুলে বসতেই দরজার মধ্যে যা লেখা দেখা যাবে পৃথিবীর কোথাও এমন উষ্ণ স্বাগতম কেউ কাউকে আগে জানায়নি। ত্যাগ, নিমগ্ন নগ্ন ধ্যান আর শান্তির এমন বাণী কেউ প্রচার করেনি। গত শীতে সেন্ট মার্টিন শিক্ষা সফরের সময় …

একটা কুকুর অথবা একজন কবির গল্প ।। মোজাফ্ফর হোসেন

অবসরপ্রাপ্ত ইংরেজির অধ্যাপক ড. রেজাউল করিম প্রতিদিন সন্ধ্যার আগ দিয়ে হাঁটতে বের হন। শেখেরটেক আটে তাঁর ফ্ল্যাট বাড়ি। হাঁটতে হাঁটতে তিনি আশপাশের এলাকাগুলো ঘুরে ঘুরে কি যেন খোঁজেন! তাঁর ছেলেবেলা কেটেছে যশোরের ভাটপাড়ায়। পড়াশোনা করেছেন যশোর, রাজশাহী ও ঢাকাতে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজিতে এমএ করে ইংল্যান্ডেও গিয়েছিলেন কয়েকবছরের জন্যে। বাপের যে অল্পবিস্তর জমিজমা ছিল সব …

রাজহাঁস যেভাবে মাছ হয়।। নির্ঝর নৈঃশব্দ্য

তার কাছ থেকে চলে আসার পর আমার আর্থিক অবস্থা খুবই খারাপ যাচ্ছিলো। সারাদিন আমি শুধু রোদে রোদে ঘুরে বেড়াই। আর ব›ধুবা›ধবদের কাছে, পরিচিত, আধাপরিচিত লোকজনের কাছ গিয়ে গিয়ে চাকরি খুঁজি। এক পর্যায়ে তারা আমাকে এড়িয়ে চলতে শুরু করে, ফোন ধরে না, ফোন কেটে দেয়, কিংবা কেউ ভুলে ফোন ধরলেও হুঁহাঁ করে কেটে দেয়। একবার চাকরি …