প্রবন্ধ

‘বাতাসের সঙ্গে আলাপ’ ও তৎপরবর্তী গদ্য কবিতার সিকদার আমিনুল হক | রাশেদুজ্জামান

বাংলাদেশের কবিতার ষাটের দশকের প্রতিনিধি সিকদার আমিনুল হক (১৯৪২-২০০৩) গ্রন্থবদ্ধ আত্মপ্রকাশ করেছিলেন পরবর্তী দশকে। জীবদ্দশায় তার সময়ের অন্যদের চাইতে তিনি নিতান্তই স্বল্পালোচিত ও অনালোচিত কবি। যদিও তার সম্পর্কে অধ্যাপক আবু দায়েনের যথার্থ পর্যবেক্ষণ হলো, তিনি ‘বাংলা কবিতায় কোনো সংঘের কবি ছিলেন না। কিন্তু এক নতুন ঘরানার সৃষ্টি করতে তিনি সমর্থ হয়েছিলেন’ (সাহিত্য: অনুভবে অনুধ্যানে, ১১৩)―তবু […]

‘বাতাসের সঙ্গে আলাপ’ ও তৎপরবর্তী গদ্য কবিতার সিকদার আমিনুল হক | রাশেদুজ্জামান Read More »

যুগন্ধরের ব্রত | আল ইমরান সিদ্দিকী

পঞ্চাশের গুরুত্বপূর্ণ কবিদের ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে গিয়ে সত্তর ও আশির শুরুতে বাংলা কবিতা যে-বেহাল দশায় পৌঁছেছিল, সেটা আমরা ঠিক আজো কাটিয়ে উঠতে পারিনি। সাধারণ পাঠক আজও পড়তে বা শখ করে লিখতে চেষ্টা করলে ঠিক সত্তরের কবিদের মতো করেই লিখে।   কালো বিদ্যুৎ চমকায়, আহা, শোঁ-শোঁ কালো হাওয়া ধমকায়, ভাই, কালো সূর্যটা জ্বেলে কালো রোদ প্রাণ

যুগন্ধরের ব্রত | আল ইমরান সিদ্দিকী Read More »

মৃত্যু সাম্প্রদায়িক | কুমার চক্রবর্তী

সংবেদ থেকে প্রকাশ হচ্ছে কবি, প্রাবন্ধিক ও অনুবাদক কুমার চক্রবর্তীর নতুন গদ্যের বই ‘খেয়ালপাতার গান’। প্রকাশিতব্য বই থেকে দর্শনধর্মী একটি লেখা প্রকাশিত হলো। কাভাফির একটি দীর্ঘ কবিতা পড়ে এ ধরনের একটি বিধারণার মুখোমুখি হই আমরা। কবিতাটি কাভাফির গড়পড়তা কবিতার চেয়ে বেশ দীর্ঘ, তাঁর প্রকাশিত কবিতার মধ্যে দীর্ঘতম। বেশ দীর্ঘ—প্রায় সত্তুর পঙ্ক্তির মতো। কবিতাটি একটি গল্পের

মৃত্যু সাম্প্রদায়িক | কুমার চক্রবর্তী Read More »

বাংলা অনুবাদে হোশাঙ্গ মার্চেন্টের দ্য ম্যান হু উড বি কুইন । অনুবাদকের ভূমিকা

হোশাং/হোশাঙ্গ মার্চেন্ট মুম্বাইয়ে জন্ম নেওয়া ভারতের বিখ্যাত কবি। এই কবি সেদেশে প্রকাশ্যে সমকামিতার অধিকার নিয়ে সোচ্চার হওয়া প্রথম কবি। ওনার লেখা গীতিগদ্যধর্মী আত্মজৈবনিক বই ‘দ্য ম্যান হু উড বি কুইন’ সম্প্রতি বাংলা অনুবাদে প্রকাশিত হয়েছে। বইটি ‘যে রানি হবে জানি এক আত্মপুরাণ’ শিরোনামে অনুবাদ করেছেন সৌরভ রায়, যা প্রকাশ করেছে তৃতীয় পরিসর। বইটির অনুবাদকের ভূমিকা

বাংলা অনুবাদে হোশাঙ্গ মার্চেন্টের দ্য ম্যান হু উড বি কুইন । অনুবাদকের ভূমিকা Read More »

আফগানিস্তানে তালিবানদের এত দ্রুত ক্ষমতা গ্রহণের কারণ — স্লাভয় জিজেক | ভাষান্তর: দিলশাদ চৌধুরী

স্লাভয় জিজেক একজন সাংস্কৃতিক দার্শনিক। তিনি ইন্সটিটিউট ফর সোশালজি অ্যান্ড ফিলোসোফি, ইউনিভার্সিটি অব লুবলিয়ানার একজন প্রবীণ গবেষক। নিউইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশ্বখ্যাত অধ্যাপক এবং ইউনিভার্সিটি অব লন্ডনের বার্কবেক ইন্সটিটিউট ফর দ্যা হিউম্যানিটিজের আন্তর্জাতিক পরিচালক। তালেবানদের এত দ্রুত আফগানিস্তান পুনর্দখল নেয়ার আসল কারণ যার প্রকাশ পশ্চিমা উদার মিডিয়া উপেক্ষা করে বিষয়ে দুই বছর আগে প্রকাশিত জিজেকের লেখাটি বাংলায় ভাষান্তর

আফগানিস্তানে তালিবানদের এত দ্রুত ক্ষমতা গ্রহণের কারণ — স্লাভয় জিজেক | ভাষান্তর: দিলশাদ চৌধুরী Read More »

কথাপুষ্প: প্রজ্ঞাবানদের বলা গল্প | রিভিউ: সেঁজুতি জাহান

কথাপুষ্প: প্রজ্ঞাবানদের বলা গল্প এটি মূলত একটি সংকলন গ্রন্থ। বইটির প্রণয়নকারী রায়হান রাইন বইটির নাম ‘কথামালা’ না বলে বলছেন কথাপুষ্প। অর্থাৎ কথাকে পুষ্পের সঙ্গে তিনি তুলনা করেছেন। তারমানে, পুষ্প কি এক অর্থে প্রজ্ঞার প্রতীক? যুগে যুগে প্রাজ্ঞ ও অভিজ্ঞ মানুষের অভিজ্ঞতা, তাঁদের গভীর জীবন বোধের কথকতা কখনো অনূদিত কখনো সুসংকলিত হয়েছে গ্রন্থটিতে। লেখক রায়হান রাইন

কথাপুষ্প: প্রজ্ঞাবানদের বলা গল্প | রিভিউ: সেঁজুতি জাহান Read More »

গডেস অভ অ্যামনেশিয়া: বিস্মরণের জানালায় দাঁড়িয়ে | মাজেদা মুজিব

স্বাধীনতাত্তোর বাংলাদেশের সাহিত্যে নারীদের চিন্তার বৈচিত্র্য যেভাবে আসার কথা ছিল, তা মূলত আসেনি। কেন নানামুখী চিন্তার প্রবেশ ঘটা যুক্তিযুক্ত ছিল, সে প্রশ্নের উত্তরে বলা যায়-বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে যে চিন্তার জায়গাটি প্রধান ছিল, তা অবশ্যই অর্থনৈতিক সাম্যবাদের সঙ্গে নারীপুরুষের সাম্য। মুক্তিযুদ্ধে নারীদের বিশেষ মর্যাদা দেওয়া হয়েছিল। বলা হয়েছিল বাংলার মায়েরা বাংলার মেয়েরা সবাই মুক্তিযোদ্ধা। একটি দেশের জাতীয়

গডেস অভ অ্যামনেশিয়া: বিস্মরণের জানালায় দাঁড়িয়ে | মাজেদা মুজিব Read More »

কথ্য-অকথ্য ও নানা পথ্য | মোস্তফা হামেদী

বাংলা কবিতার ভাষা বদলে হালে বেশ চাউর একটা বিষয়, কাব্যভাষায় কথ্যরীতির ব্যবহার। এই বিষয়ে আলাপ পাড়ার আগে একটু ইতিহাসের দিকে নজর ফিরাই। আমাদের চর্চিত ভাষার যে গণগ্রাহ্য আদল, তার কিছু হালচালও জানা যাক।   পুরান কথার জের ধরে আধুনিক কালে ভাষা-বিতর্কে প্রতিষ্ঠানের মাতবরি দেখলে সুলুক নিতে ইচ্ছা করে ভাষা নিয়ে তাদের ভাজা মাছ উল্টে খেতে

কথ্য-অকথ্য ও নানা পথ্য | মোস্তফা হামেদী Read More »

‘আমার আপনার চেয়ে আপন যে জন খুঁজি তারে’ : এক বিদ্রোহী কবির অচেনা বেদনাগুচ্ছ | সেঁজুতি জাহান

“গুণবান যদি পরজন, গুণহীন স্বজন, তথাপি নির্গুণ স্বজন শ্রেয়ঃ পরঃ পরঃ সদা” মধুসূদন তাঁর ‘মেঘনাদবধ কাব্যে’ এই প্রবাদসম সত্যটি উচ্চারণ করেছেন। মধুসূদনের ইংরেজ-অভিজ্ঞতার ফলশ্রুতিতে এমন আপ্তবাক্য উচ্চারণ করা খুবই ন্যায্য। গুণবান পরের চেয়ে গুণহীন স্বজন শ্রেয় সন্দেহ নেই, কিন্তু খোদ ‘গুণহীন’ই তো মানবের পক্ষে একটা ‘অপর’ ব্যাপার, যা যাবতীয় উচ্চম্মন্যতা ও বিদ্বেষের জনক। গুণহীন স্বজনসৃষ্ট

‘আমার আপনার চেয়ে আপন যে জন খুঁজি তারে’ : এক বিদ্রোহী কবির অচেনা বেদনাগুচ্ছ | সেঁজুতি জাহান Read More »

কবিতা কী করে চিনবো | মোস্তফা হামেদী

কবিতা কী করে চিনবো?-এই রকম একটা প্রশ্নকে ঘুরিয়ে বলা যায়, কবিতা লোকে কী করে চেনে? শর্টকার্টে উত্তর দেয়া যায়- লোকে লোকের রুচির মাপে কবিতা চিনে। কথাটারে ঘুরায়ে বলতে পারি, লোকের কবিতা পাঠ তার রুচি দ্বারা নিয়ন্ত্রিত অথবা নির্ধারিত। তাহলে ভাবতে পারি, রুচি কীভাবে তয়ের হয়? এটা কি কাল নিরপেক্ষ কোনো দৈবী ব্যাপার? আমাকে কেউ জিজ্ঞাস

কবিতা কী করে চিনবো | মোস্তফা হামেদী Read More »

error: Content is protected !!