ধারাবাহিক উপন্যাস – তারাদের ঘরবাড়ি ।। অলোকপর্ণা ।। ১৮ পর্ব

                                  তারাদের ঘরবাড়ি  ১৮   সকাল হতে ইন্দিরার চোখ খুলে যায়। হলঘরের ঠাণ্ডা মেঝে ছেড়ে সে ছুটে বাইরে চলে আসে। বারান্দাটা ফাঁকা। ঠাণ্ডা একটা হাওয়া বয়ে যাচ্ছে সেখানে। বাইরে সামনে দৃষ্টি এফোঁড়-ওফোঁড় করে চলে যাওয়া কারেন্টের তার বেয়ে কাঠবিড়ালি …

কবিতাগুচ্ছ ।। সুপ্তা সাবিত্রী

শীতের ডায়েরি আহত পাখির চোখে দেখেছি ক্লান্তিময় প্রস্থান সন্ধ্যার ডানাভাঙা ঘরগুলো যেখানে স্থিরায়ু, বুভুক্ষু- কঠিন মাটির বুক ভেঙে আরো কঠিন উৎরত ছায়াতল  বীজের উত্থান; এই নরম শরীরেরগাঁট জুড়ে বালির গন্ধ যেখানে ভেসে ভেসে আসে জলের বাতাস, মাছের নামতা পড়া দুপুরে ঘুণপোকা আর পাঁচালির সুর। দীর্ঘ বালিয়াড়ি পেরিয়ে ছায়েল দু’খানি ঘর আর জ্যান্ত কই এর ঝাপ্টানো …

নস্টালজিয়া ।। রাজিব মাহমুদ

ক. প্রাক-কথন প্রতিদিনকার ছোট ছোট ক্লীশেড স্ন্যাপশট্ গুলোর ভেতর দিয়ে যেতে যেতে চিন্তার বাঁক বদল করে রঞ্জু। অফিসে বসের এখনো-সই-না-হওয়া ফাইলটা, বাসার ডাইনিং টেবিলে সদ্য আসা বিদ্যুৎ বিলটার গ্লাসগুলোর একপাশে হামাগুড়ি-দিতে-দিতে-উপুড়-হয়ে-ঘুমিয়ে-পড়া শিশুর মত পড়ে থাকা, পাশের ফ্ল্যাটে নতুন আসা ভাড়াটেদের মেঘ-রঙা কামিজের মেয়েটার ঘোলা-কাঁচ স্যুররিয়েল হাসি, নীচের বুড়ো দারোয়ানটার এ্যাপার্টমেন্টের সামনের রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাওয়া …