ফ্ল্যাশ ফিকশন | মেহেদি হাসান তন্ময়

১। অপেক্ষার চেয়ে উপেক্ষা ভাল, এই ভেবে স্মৃতি মুছে দিলো তোমার আমার।

২। তারপর অখণ্ড অবসর, কারা যেন ব্যস্ততা চুরি করে নিয়ে গেছে।

৩। কাউকে মনে না করে তোমাকে মনে করছিলাম এমন দাবী করেছিল মেয়েটি।

৪। ধর্ম কী বিধর্মীর কাছে চুরি হয়ে যাওয়া পাপ?

৫। এমন সময় নিয়ে কার কাছে যাই, কে এমন সময়ে বাস করছে?

৬। কারা যেন টান দিয়েছে ঘড়ি, তাই কাটা থেমেছে বুকে।

৭। পকেটের খালি কাপড় কিনেছে মহাকালের শূন্যতা।

৮। দূর থেকে কেউ বলে আমি তো নিকটে থাকি।

৯। ওরা ক্ষমতায় রেখেছে পাসপোর্ট ভিসা, যা দিয়ে কেবল দেশ কেনা যায়।

১০। রাত্রির অন্ধকারে প্রাণিসকল এখন কবিতা যাপন করছেন।

১১। আধা বর্বর পাথরে আধা বর্বরতা শান করছে ছুরি।

১২। শূন্যতার উচ্চতায় ভর করেছে তোমার ছায়ার ডানা।

১৩। শূন্যতার ঘন অন্ধকারে জ্বলে উঠলো প্রতিভা।

১৪। জগতে তুমিই সুন্দর আয়নার পরাবৃত্তে।

১৫। মৌতাতের ছন্দে উচ্চ হইয়াছে নার্সিসিস্টের গান।

১৬। আমাদের গন্তব্য কেবল শান্তি ও স্বাধীনতা পর্যন্ত।

১৭। একটি পাতা ধরে তুমি কতকাল বেঁচে থাকবে?

১৮। আঙ্গুল কেটে করেছি আত্মখুন, হায় জান্নাত!

১৯। যতই লিখে রাখো নাম স্লেটে, সবই মুছে যাবে।

২০। কিছুই ভাল লাগে না এখন, তোমাকে মনে পড়ে।

২১। শরীরের ভেতরে শরীর ধারণ করতে গর্ব লাগে।

২২। আমাদের ঘুমের জন্য পর্যাপ্ত অর্থ নেই।

২৩। তোমার তিলের নিচে ভোর লুকিয়ে রাখে রাত।

২৪। তাকে ভালোবাসা যেত খুব, কারণ ছাড়াই দুর্বোধ্য মানুষকে ভালবাসা যায়।

২৫। ভালবাসায় ঘুমাতে দাও, স্বপ্নে দেখা হয়ে যাবে।


মেহেদি হাসান তন্ময়

mhtonmoyju@gmail.com

শেয়ার করুন

লেখা সম্পর্কে মন্তব্য

টি মন্তব্য

%d bloggers like this: